মুখ্যমন্ত্রীর নির্দেশকে উপেক্ষা করে মাটি মাফিয়ারাজ চলছে উত্তর দিনাজপুর জেলার রায়গঞ্জ ব্লকে

মুখ্যমন্ত্রীর নির্দেশকে উপেক্ষা করে মাটি মাফিয়ারাজ চলছে উত্তর দিনাজপুর জেলার রায়গঞ্জ ব্লকে

মুখ্যমন্ত্রীর নির্দেশকে উপেক্ষা করে মাটি মাফিয়ারাজ চলছে উত্তর দিনাজপুর জেলার রায়গঞ্জ ব্লকে। রায়গঞ্জ ব্লকের নাগর নদীর ধারের সরকারি ভেস্ট ল্যান্ডের জমির মাটি কেটে বিক্রি করার অভিযোগ উঠল তৃনমূল পঞ্চায়েত সদস্যের স্বামী ও তাঁর দলবলের বিরুদ্ধে। গ্রামের বাসিন্দারা বাধা দিতে গেলে তাঁদের উপর চড়াও হয় বলে অভিযোগ। আতঙ্কিত গ্রামের বাসিন্দারা রায়গঞ্জ থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করার পাশাপাশি গ্রাম ও তাঁদের কৃষিজমি বাঁচানোর উদ্দেশ্যে ব্লক, মহকুমা ও জেলা ভূমি ও ভূমি সংস্কার আধিকারিকের কাছে দ্বারস্থ হয়েছেন। রায়গঞ্জ ব্লকের শীতগ্রাম গ্রামপঞ্চায়েতের কৃষ্ণমুরি গ্রামের এই ঘটনায় ব্যাপক চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে। অভিযোগ পেলে ঘটনার তদন্তের আশ্বাস দিয়েছেন উত্তর দিনাজপুর জেলা ভূমি ও ভূমি সংস্কার আধিকারিক কাজল সাহা।

দিনের পর দিন নদীর ধারের জমির মাটি কেটে বিক্রি ও ব্যাবসা করার অভিযোগ উঠেছিল রায়গঞ্জ ব্লকের শীতগ্রাম গ্রামপঞ্চায়েতের কৃষ্ণমুড়ি গ্রামে। এভাবে নাগর নদীর ধারের সরকারি জমির মাটি কেটে নেওয়ায় সমস্যায় পড়েছেন জমিতে চাষবাস করা গ্রামের বাসিন্দারা। বিষয়টি নিয়ে গ্রামের বাসিন্দারা বাধা দিতে গেলে তাঁদের উপর চড়াও হয় তৃনমূল কংগ্রেসের স্থানীর পঞ্চায়েত সদস্যার স্বামী একতেকার আলি সহ বেশ কয়েকজন দুস্কৃতীরা। গ্রামবাসীরা রায়গঞ্জ থানায় দুস্কৃতীদের বিরুদ্ধে লিখিত অভিযোগ দায়ের করার পাশাপাশি নাগর নদীর মাটি কাটা বন্ধ করার উদ্দেশ্যে রায়গঞ্জ ব্লক, মহকুমা ও উত্তর দিনাজপুর জেলা ভূমি ও ভূমি সংস্কার আধিকারিকের দ্বারস্থ হন। যদিও স্থানীয় তৃনমূল পঞ্চায়েত সদস্যার স্বামী একতেকার আলি জানিয়েছেন, গ্রামে একটি শিশু শিক্ষা কেন্দ্র রয়েছে। সেই শিশু শিক্ষাকেন্দ্রে যাওয়ার রাস্তা নির্মানের জন্য গ্রামের সকলের মতামত নিয়ে সরকারি ভেস্ট ল্যান্ড থেকে কয়েক ট্রলি মাটি তুলে শিশু শিক্ষা কেন্দ্রের রাস্তা করা হয়েছে। গ্রামের কিছু দুস্কৃতকারী এই কাজে বাধা তৈরি করে অপপ্রচার চালাচ্ছে। স্থানীয় শীতগ্রাম গ্রামপঞ্চায়েতের তৃনমূল অঞ্চল সভাপতি মহম্মদ জলিল জানিয়েছেন, রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রীর নির্দেশ অনুযায়ী এখানে কোনওরকম বালি বা মাটি মাফিয়ার কাজ করতে দেওয়া হবেনা। তাঁর পাল্টা অভিযোগ, যে ব্যক্তি ও তার দলবল এই কাজ করছে তারা বিগত বিধানসভা নির্বাচনে বিরোধী দলের হয়ে কাজ করছে। আমরা পুলিশ প্রশাসনকে বিষয়টি দেখার জন্য বলেছি। উত্তর দিনাজপুর জেলা বিজেপির সভাপতি বাসুদেব সরকার জানিয়েছেন, বালি চুরি, মাটি চুরি, কয়লা চুরি, লোহা চুরি এগুলো তৃনমূল কংগ্রেসের অলিখিত সংবিধান। মানুষকেই এর প্রতিবাদ জানাতে হবে। উত্তর দিনাজপুর জেলা ভূমি ও ভূমি সংস্কার আধিকারিক কাজল সাহা জানিয়েছেন, এখনও পর্যন্ত কোনও অভিযোগ পাইনি। অভিযোগ না পেলেও সংবাদ মাধ্যমের কাছে এধরনের ঘটনার খবর পেয়েই মহকুমা আধিকারিককে ঘটনার তদন্ত শুরু করতে বলা হয়েছে।

উত্তর বাংলা