কালিয়াচক থানার রামনগর এলাকায় জঙ্গল থেকে ব্যাগ ভর্তি তাজা বোমা উদ্ধারের ঘটনায় ব্যাপক চাঞ্চল্য ছড়ালো

কালিয়াচক থানার রামনগর এলাকায় জঙ্গল থেকে ব্যাগ ভর্তি তাজা বোমা উদ্ধারের ঘটনায় ব্যাপক চাঞ্চল্য ছড়ালো

মালদা, ২২ জানুয়ারি। কালিয়াচক থানার রামনগর এলাকায় জঙ্গল থেকে ব্যাগ ভর্তি তাজা বোমা উদ্ধারের ঘটনায় ব্যাপক চাঞ্চল্য ছড়ালো। শনিবার দুপুরে স্থানীয় কিছু মানুষ জঙ্গলের মধ্যে ওই পরিত্যক্ত ব্যাগটি পড়ে থাকতে দেখে। এরপরই তাদের সন্দেহ হয়। উঁকিঝুঁকি মারতেই ব্যাগের মধ্যেই বোমা মজুদ থাকার বিষয়টি জানতে পারেন স্থানীয় কিছু মানুষ। এরপরই গোটা এলাকা জুড়ে শোরগোল পড়ে যায় । খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পৌঁছায় কালিয়াচক থানার বিশাল। পুলিশবাহিনী পরে খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে তদন্তে আসে বোমা নিষ্ক্রিয় বাহিনী এবং দমকলের একটি ইঞ্জিন।
কালিয়াচক থানার রামনগর এলাকাটি জনবহুল থাকায় তাজা বোমা উদ্ধারের পর আতঙ্ক ছড়িয়েছে । প্রায় ওই ব্যাগ থেকে দশটি দেশী তাজা বোমা উদ্ধার করে পুলিশ । যেগুলি পরে জনবসতিহীন ফাঁকা জায়গায় নিষ্ক্রিয় করে বোম স্কট বাহিনীর কর্তারা।
কালিয়াচক থানার পুলিশ জানিয়েছে, ওই পরিতক্ত জঙ্গলে কারা তাজা বোমা গুলি মজুত করে রেখেছিল সে ব্যাপারে এখনও পরিষ্কার করে কিছু জানা যায় নি। তবে পুরো বিষয়টি নিয়ে তদন্ত শুরু করা হয়েছে।
অন্যদিকে একই সময়ের মধ্যে বৈষ্ণবনগর থানার কুম্ভিরা মোহনপুর এলাকা থেকে একটি ড্রামে মজুত ১০০ টিরও বেশী তাজা বোমা উদ্ধার করেছে পুলিশ। এত বিপুল পরিমাণ তাজা বোমা কে বা কারা মজুত করে রেখেছিল তা জানতে তদন্ত শুরু করেছে সংশ্লিষ্ট থানা পুলিশ। এই বোমা উদ্ধারের ঘটনায় ওই এলাকাতেও তদন্তে যায় বোম স্কট বাহিনীর দল।
পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে, একটি বড় ড্রামে এত বিপুল পরিমাণ তাজা বোমা মজুত করে রেখেছিল দুষ্কৃতীরা। মোহনপুর গ্রামের কবরস্থানের পাশে একটি জঙ্গলে লুকানো ছিল এই তাজা বোমা গুলি। এদিন দুপুরে ওই জঙ্গল দিয়ে কিছু মানুষ কাজ সেরে বাড়ি ফেরার সময় পরিত্যক্ত ড্রামটি নজরে আসে। এরপরে বোমা উদ্ধারের বিষয়টি জানা যায় । দুটি ঘটনা নিয়েই তদন্ত শুরু করেছে সংশ্লিষ্ট থানার পুলিশ কর্তারা।

উত্তর বাংলা